সাধারণত আমরা সুন্দর চেহারা পেতে নানান রকম ফেসিয়াল, স্ক্রা্‌ মেসেজের মতো চিকিৎসা নিয়ে থাকি। কিন্তু যখন ঘাড়ের ব্যাপার আসে তখন আমরা যথেষ্ট পরিমাণ যত্ন নেই না।

যার ফলে আমাদের ঘাড় আশানুরূপ চেহারার সাথে মিল পড়ে না। ঘাড়ে তৈরি হয় কালো দাগ।

অনেক সময় ঘাড়ের ময়লা জমে এমন কালো দাগ সৃষ্টি হয়।

আবার অনেক সময় এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া ঘাড়ে বাসা বাঁধে। যার ফলে ঘাড় কালো দেখায়।

দাগের কারণঃ 

ঘাড়ের কালো দাগ পরার কারণ

  1. রোদে পোড়া এবং ময়লা জমার কারণে।
  2. নিগ্রিক্যানস হরমোনজনিত কারণে।
  3. ব্যাকটেরিয়ার কারণে।

ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ক্রিম এর নাম

গলার ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম

                • মারিকা বডি টোনার

ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ক্রিম এর নাম

 

শরীরের কালো দাগ দূর করে হাত পা ফর্সা করবে ।

ঘাড়ে কালো দাগ কেন হয় ?

হরমোনজনিত ও ব্যাকটেরিয়া জনিত কারণে ঘাড়ের কালো দাগ হয় ।

এমন হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

যদি হরমোনজনিত এবং ব্যাকটেরিয়ার কারণে ঘাড়ের কালো দাগ না হয়ে থাকে তাহলে ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি ব্যবহার করে খুব সহজে ঘাড়ের কালো দাগ দূর করতে পারবে।

ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ৫টি ঘরোয়া পদ্ধতি

কালো দাগ দূর করতে অ্যালোভেরার ব্যবহার

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ অ্যালোভেরা ত্বকের হাইড্রেটেড ও পুষ্টির যোগান দেয়। যার ফলে কালো দাগ ধীরে ধীরে উঠে যায়।

ব্যবহারের নিয়ম:
একটি তাজা অ্যালোভেরার পাতা নিন পাতাটি কেটে অ্যালোভেরা জেল সরাসরি আপনার ঘাড়ে মেসেজ করুন। জেলটি আপনার ঘাড়ে 20 মিনিট ঘষুন। তারপরে আপনার কারে আরো বিশ মিনিট জেলটি লাগিয়ে রাখুন। অতঃপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন ধারাবাহিকভাবে অ্যালোভেরার পাতা ব্যবহার করুন। নিয়মিত এর প্রতিকার লক্ষ্য করবেন।

আপেল সিডার ভিনেগার

আপেল সিডার ভিনেগার আপনার ত্বকের পিএইচ স্তরের ভারসাম্য বজায় রাখে এবং ম্যালিক এসিডের উপস্থিতিতে ত্বকের মৃত কোষ গুলোকে সরিয়ে দেয় ফলে আপনার ত্বকের কালো ভাব দূর হয়ে যায়।

ব্যবহারের নিয়ম:
2 টেবিল চামচ আপেল সিডার ভিনেগার এবং 4 টেবিল চামচ পানি দিয়ে মিশ্রন করুন। অতঃপর 10 মিনিটের জন্য তুলার সাহায্যে আপনার ঘাড়ে লাগিয়ে রাখুন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মিশ্রণটি ঘাট থেকে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফলাফল পেতে অবশ্যই প্রতিদিন এটি ব্যবহার করুন।

বেকিং সোডা

আপনার ঘাড় থেকে মৃত কোষ দূর করার জন্য বেকিং সোডা অনেক কার্যকরী একটি উপাদান। বেকিং সোডা ত্বকের ময়লা অপসারণ করে এবং ত্বককে গভীর থেকে পুষ্টির সহায়তা করে।

ব্যবহারের নিয়ম:
দুই থেকে তিন টেবিল চামচ বেকিং সোডা দিয়ে পানির সাথে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। মিশ্রনটা যেন একদম পাতলা বা গারো না হয়। তারপর মিশ্রণটি আপনার ঘাড়ে লাগান। শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। শুখিয়ে গেলে আপনার আংগুল ভিজিয়ে, ভেজা আঙ্গুল দিয়ে তা সরিয়ে ফেলুন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে স্থানটি পরিষ্কার করুন। প্রতিদিন নিয়মিত ব্যবহার করুন। অবশ্যই আশানুরূপ ফলাফল পাবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: বেকিং সোডা ব্যবহারের পরে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজ করতে ভুলবেন না। অর্থাৎ ওই স্থানে গ্লিসারিন বা লোশন ব্যবহার করুন।

ঘাড়ের কালো দাগ দূর করতে আলুর রস

আলোতে প্লিজ সিং এর বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান। যা আপনার ত্বককে জমে থাকা ময়লা এবং ব্যাকটেরিয়া দূর করতে সাহায্য করে।
আলু ব্যবহারের নিয়ম;
আলু কুচি কুচি করে কেটে অথবা ব্লেন্ডারে দিয়ে রস বের করতে হবে। তুলার সাহায্যে এই রস আপনার ঘাড়ে লাগাতে হবে। এভাবে 10 থেকে 20 মিনিট রেখে দিন। রস শুকিয়ে গেলে তা ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
প্রাকৃতিক ভাবে কালো দাগ দূর করতে আলুর ব্যবহার অতুলনীয় ।

উবটান

আমরা হয়তো অনেকেই লিজান উপটান অথবা বিভিন্ন ধরনের উদ্যানের নাম শুনেছি। হ্যাঁ এই উত্তর দিয়ে আপনার ঘাড়ের কালো দাগ দূর করতে পারবেন খুব সহজে।

বাসায় কিভাবে রূপ দান বানাবেন:

2 টেবিল চামচ বেসন আধা চা চামচ লেবুর রস এক টুকরো হলুদ এবং কিছু গোলাপজল গোলাপজল না থাকলে দুধ ব্যবহার করুন। সবগুলো একসাথে মিশ্রন করুন। মিশ্রণটি আপনার ঘাড়ে 15 থেকে 20 মিনিটের জন্য লাগিয়ে রাখুন। এরপর তা ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতি সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করুন।

এই পদ্ধতি গুলো ব্যবহার করার পর অবশ্যই এর ফলাফল কমেন্ট সেকশনে জানাবেন ।

By Mahedi

লেখালেখি আমার সখ ও পেশা। আমি টেক্সটাইল এর উপর বিএসসি করেছি। কিন্তু পেশা হিসেবে ব্লগিংকে বেছে নিয়েছি। বর্তমানে এটি খুবই সন্মানজনক পেশা। আমি সাধারণত খেলাধুলা, ছবি, পড়াশোনা ইত্যাদি বিষয় নিয়ে লিখতে ভালবাসি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *