পানির অপর নাম জীবন। সৃষ্টিকর্তার অশেষ নেয়ামত হল পানি। পৃথিবীর 70 ভাগ পানি এবং 30 ভাগ স্থল। শতভাগ পানির মধ্যে শুধু মাত্র 10 ভাগ পানি পান করার উপযুক্ত। বর্তমানে বিজ্ঞানীরা সমুদ্রের লবণাক্ত পানিকে খাওয়ার উপযোগী করে তুলছেন। আমাদের শরীরের জন্য পানির প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। পানির প্রয়োজনীয়তা লিখে বলে শেষ করা যাবে না।

এইপানি আমাদের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে। আসুন জেনে নেওয়া যাক পানি পান করার কিছু উপকারিতা।

পানি পানের উপকারিতা

পানি পানের উপকারিতা

পানি বেশি খাওয়ার উপকারিতা

বেশি পানি পান করলে আপনার শরীরের অনেক উপকারে আসে । আপনার শরীরের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায় । প্রতিটি অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারে । বিশেষ করে কিডনি সুস্থ থাকে । যার ফলে আপনার শরীরে রক্ত চলাচল ভালো থাকে । এক কথায় বেশি পানি পান করলে আপনার শরীর অনেক সুস্থ থাকবে এবং সচল থাকবে । বিজ্ঞানীরা  দেখেছে, মানুষের প্রতিটি অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে বিভিন্ন ধরনের রোগ সৃষ্টির মূল কারণ কম পানি পান করা । তাই বেশি বেশি পানি পান করলে রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায় । পানি পানের ফলে যে সকল অঙ্গ প্রত্যঙ্গ ভালো থাকে ।

  1. কিডনি ভালো থাকে
  2. হার্টের রোগ হওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশে কমে যায়
  3. পানি পানের ফলে আপনার পেট সবসময় পরিষ্কার থাকে
  4. আপনার চোখ ভালো থাকবে
  5. মাথা ব্যথা দূর হবে
  6. আপনি শরীরে পর্যাপ্ত পরিমান শক্তি পাবেন ।

গরম পানি খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা

গরম পানি খাওয়ার উপকারিতা রয়েছে । তবে অত্যধিক গরম পানি নয় । হালকা গরম পানি । ডাক্তাররা রোগীদের ঠান্ডা পানি পান করতে নিষেধ করে । কারণ ঠান্ডা পানি আপনার শরীরের যে পরিমাণ কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করবে,  তার চেয়ে গরম পানি 5 গুন বেশি কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারবে । এছাড়া ঠান্ডা পানি পানের ফলে আপনার শরীরের নানান ধরনের সমস্যা দেখা দেয় । যেমন:

  • আপনার সর্দি কাশি হতে পারে ।

গরম পানি পানের ফলে আপনার পরিপাক যন্ত্র ভালোভাবে কাজ করতে পারে।

সকালে ঘুম থেকে উঠে পানি পানের উপকারিতা

সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে পানি পান করার উপকারিতা অনেক । অনেকেই এই অভ্যাসের কারণে শরীর সুস্থ রাখতে পেরেছে । আমেরিকান একটি গবেষক প্রমাণ করেছে যে, প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে পানি পান করলে শরীরের বর্জ্য পদার্থগুলো শরীর থেকে বের হয়ে যায় , সারারাত আপনি যখন ঘুমিয়ে থাকেন আপনার শরীরের কার্যক্রম অব্যাহত থাকে ।  সকালে যদি পানি পান করেন তাহলে সকল বর্জ্য পদার্থ সেই পানির সাথে আপনার শরীর থেকে বের হয়ে যায়।

পানি খাওয়ার নিয়ম

পানি পানের কিছু নিয়মকানুন রয়েছে। ডাক্তাররা মতামত দিয়ে থাকেন  খাবার খাওয়ার 30 মিনিট পূর্বে ১ লিটার পানি পান করার জন্য । আবার খাবার মধ্যে অথবা খাবার পরে কোন পানি খাওয়া যাবে না । যদি খাবার সময় খাবার আপনার গলা চেপে যায় তাহলে অবশ্যই অল্প পরিমাণে পানি পান করবেন । কিন্তু অধিক পরিমাণে পানি পান করা আপনার শরীরের জন্য একটু ক্ষতি   করবে । খাবার শেষ করার আধা ঘন্টা পরে আপনাকে পানি পান করতে হবে । এছাড়াও ভাজাপোড়া জাতীয় খাবার খাওয়ার সাথে সাথে পানি পান করা যাবে না ।

এতে আপনার পেটে গ্যাস্টিকের সমস্যা দেখা দিবে ।
সকালে ঘুম থেকে উঠে এবং রাতে ঘুমানোর আগে পানি পান করা খুব জরুরি। এই দুই সময় পানি পানের উপকারিতা অনেক । অবশ্যই চেষ্টা করবেন হালকা গরম পানি পান করার জন্য । কখনোই ফ্রিজের ঠান্ডা পানি খাবেন না ।
আপনি যখন কোন কাজ  শেষে তৃষ্ণা পাবে । সেই মুহূর্তে পানি পান করবেন না । এতে আপনার শরীরের বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে । আপনার শরীর ঠান্ডা হওয়ার পরে পানি পান করবেন ।এভাবে পানি পানের অনেক উপকারিতা রয়েছে।

ঠান্ডা পানি খাওয়ার উপকারিতা

ঠান্ডা পানি পানের উপকারিতা খুব কম । ঠান্ডা পানি পানের অপকারিতা বেশি ।

খালি পেটে পানি খাওয়ার উপকারিতা

শুধুমাত্র সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে পানি খাওয়ার উপকারিতা আছে । এছাড়া অন্যান্য সময় খালি পেটে পানি কম খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

সুস্থ থাকতে পানি খাবেন কখন?

সুস্থ থাকতে সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে খালি পেটে পানি খাবেন এবং রাতে ঘুমানোর আগে পানি পান করবেন । অবশ্যই পানি  ফ্রিজের ঠান্ডা পানি না হয় । সব সময় হালকা গরম পানি পান করার চেষ্টা করবেন । এছাড়া অন্যান্য সময় পানি পান করবেন । প্রতিদিন 4 থেকে 6 লিটার পানি আপনার শরীরের প্রয়োজন হয় । গরমের দিনে একটু বেশি পানি পান করার চেষ্টা করবে । কারণ গরমের দিনে আপনার শরীর থেকে ঘামের মাধ্যমে পানি বের হয়ে যায় । ফলে আপনার শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে । আপনার শরীর দুর্বল হয়ে যেতে পারে।

আশা করি, পানি পানের উপকারিতা নিয়ে এই পোস্টটি আপনার ভালো লেগেছে । এছাড়াও যদি আরো উপকারিতা আপনার জানা থাকে, তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে আমাদেরকে জানাবেন অথবা আমাদের ফেসবুক পেজে আপনার মতামত প্রকাশ করতে পারেন।

By Mahedi

লেখালেখি আমার সখ ও পেশা। আমি টেক্সটাইল এর উপর বিএসসি করেছি। কিন্তু পেশা হিসেবে ব্লগিংকে বেছে নিয়েছি। বর্তমানে এটি খুবই সন্মানজনক পেশা। আমি সাধারণত খেলাধুলা, ছবি, পড়াশোনা ইত্যাদি বিষয় নিয়ে লিখতে ভালবাসি ।

One thought on “পানি পানের উপকারিতা ও অপকারিতা । পানি পানের নিয়ম”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *